pic_ms_iacd7_16_en.jpg

দুর্নীতিবিরোধী প্রচারণা জোরদারে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন এর সাংঘর্ষিক ধারাসমূহ সংশোধনের দাবি

User Rating:  / 0
PoorBest 
সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশও করোনার কারনে একটি দুঃসময় পার করছে। বর্তমান এই পরিস্থতির মধ্যে শারিরীকভাবে উপস্থিত হয়ে কোন ধরনের দুর্নীতিবিরোধী প্রচারণার কাজ করা আদৌই সম্ভব হচ্ছে না কিন্তু তরুণ শিক্ষার্থীরা যারা সব সময় এই কাজগুলো করতে অভ্যস্ত তারা হয়তো সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে অল্প পরিসরে হলেও স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতের অভিপ্রায়ে দুর্নীতিবিরোধী প্রচারণা চালাতে পারতো কিন্তু না, সেখানে আরো বেশী বড় বাঁধা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮। এটি এমন একটি আইন যার অনেক ধারা/উপধারা সাংঘর্ষিক ও নিজের মত করে ব্যাখার সুযোগ আছে। সেই ভয়ে অনেক তরুণ শিক্ষার্থীর দীর্ঘ দিনের প্রত্যাশা এ বিষয়ে একটি আলোচনায় অংশগ্রহণ করা এবং আইনটি সস্পর্কে ভালভাবে জানা। 
ঠিক যেমনটি প্রত্যাশা, গত ২১ জুলাই ২০২০ বিকালে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এর অনুপ্রেরণায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) কুমিল্লার উদ্যোগে কুমিল্লা অঞ্চলের পাঁচটি সনাক (কুমিল্লা, চাঁদপুর, গাজীপুর, লক্ষীপুর ও মুন্সীগঞ্জ) এর অংশগ্রহণে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া প্রায় ৭০ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে “দুর্নীতিবিরোধী প্রচারণা ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮” বিষয়ের উপর আয়োজন করা হয় অনলাইন মুক্ত আলোচনা। আলোচনায় মূখ্য আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন টিআইবি’র সিভিক এনগেজমেন্ট বিভাগের পরিচালক ফারহানা ফেরদৌস, সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার মো: আতিকুর রহমান, সনাক চাঁদপুরের সদস্য অ্যাডভোকেট পলাশ মজুমদার প্রমূখ। সভাপতিত্ব করেন সনাক কুমিল্লার সদস্য বদরুল হুদা জেনু এবং স্বাগত বক্তব্য সনাক সদস্য রোকেয়া বেগম শেফালী। 
আলোচকগণ মনে করেন যে, উল্লেখিত আইনের যে সকল ধারা/উপধারা মানুষের স্বাধীন মতপ্রকাশের আন্তরায় তা সংশোধন করে আইনটিকে সুযোপযোগী করা সময়ের দাবী। 
 
মো: হুমায়ুন কবীর
পিএম-সিই
কুমিল্লা ক্লাস্টার
 

Add comment

Only the commentator have the whole liability for any comment.


Security code
Refresh

Posts by Year