pic_ms_iacd7_16_en.jpg

এলাক এর সহায়তায় অবশেষে অপহরণকৃত সন্তানকে ফিরে পেলেন দীপু চন্দ্র রায়

User Rating:  / 5
PoorBest 

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ থানার হররাম গ্রামের সহজ, সরল ও দরিদ্র ব্যক্তি দীপু চন্দ্র রায়ের একমাত্র ছেলে শুভ চন্দ্র রায়(১২)। গত ২৩/০৪/২০১৭ ইং তারিখে কিছু সন্ত্রাসী তার সন্তান শুভকে অপহরন করে নিয়ে যায় এবং বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কৌশলে বিভিন্ন নম্বর ব্যবহার করে মুক্তিপন দাবী করতে থাকে। পরবর্তীতে ০২/০৫/২০১৭ তারিখে সংশ্লিষ্ট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন এবং পুলিশ সুপারের সহযোগিতার জন্যও তার নিকট ০৭/০৫/২০১৭ তারিখে একটি আবেদন করেন। ইতিমধ্যে টাকা লেনদেনের বিকাশ নম্বরের সূত্র ধরে সন্ত্রাসীদের একজনকে গ্রেফতার করা হয় এবং তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠায় কালীগঞ্জ থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আসামী নিজ অপরাধ স্বীকার করে পাশাপাশি অপহরন এবং মুক্তিপন দাবীকারী মূল হোতা ও অন্যান্য সহযোগীদের নামও প্রকাশ করে। কিন্তু নাম প্রকাশের পরও অপহরনকারীদের মূল হোতা ক্ষমাতাসীন রাজনৈতিক দলের হওয়ায় তাদেরকে গ্রেফতার করা এবং শিশুটিকে উদ্ধারের ক্ষেত্রে সংশয় দেখা দিচ্ছে। ঘটনার ১৫ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরও ছেলেকে ফেরত না পেয়ে দীপু চন্দ্র তার পাশর্^বর্তী ‘এলাক’ এর অপর এক ক্লায়েন্ট কারী আব্দুস সাত্তার মারফত ০৯/০৫/২০১৭ তারিখ টিআইবি’র এলাক এ আসেন এবং বিস্তারিত ঘটনা খুলে বলেন।

অভিযোগকারীকে এই মর্মে পরামর্শ দেয়া হয় যে, পুলিশের পক্ষ থেকে যেহেতু মামলা রুজু করা হয়েছে অতএব এই মামলার কপিসহ সন্দেহভাজনদের বিরুদ্ধে র‌্যাব-১৩ এ একটি অভিযোগ দিতে। পরামর্শ অনুযায়ী ঐদিনই অভিযোগকারী উক্ত মামলার কপিসহ সন্দেহভাজনদের বিরুদ্ধে র‌্যাব-১৩ এ একটি অভিযোগ দায়ের করেন। র‌্যাবের পক্ষ থেকে ভূক্তভোগীকে সম্পূর্ণভাবে সহযোগিতার আশ^াস প্রদান করা হয়। পাশাপাশি সাংবাদিকদের মাধ্যমে নিউজ প্রকাশ করে প্রশাসেনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের তৎপরতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে এলাকের পক্ষ থেকে অ্যাডভোকেসী করা হয়। ডেইলি স্টার সহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ প্রচার হয় । যাই‌হোক, দীর্ঘ প্রায় একমাস অতিবাহিত হলেও অপহরনকৃত ছেলেটি উদ্ধার  কিংবা পলাতক ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী সন্ত্রাসী অপহরনকারীরা গ্রেফতার না হওয়ায় এলাকের পক্ষ থেকে গত ২৩/০৫/১৭ ত‌ারিখ মঙ্গলবার নির্ভর‌যোগ্য তথ্য দি‌য়ে পু‌লিশ‌কে ঐ নেতা‌র সম্ভাব্য অবস্থান এবং তার ব্যবহৃত পাঁচ‌টি মোবাইল নম্ব‌রের সন্ধান দেয়া হয় যা‌তে পুলিশ মোবাইল নম্ব‌র ট্রা‌কিং ক‌রে অপহরনকারী‌দের মূল হোতা‌কে গ্রেফতার কর‌তে পা‌রে। পুলিশ বল‌ছিল, যা‌কে মূল হোতা বলা হ‌চ্ছে এটা ঠিক যে সে সন্ত্রাসী, মাদক কেনা‌বেচা ও চোরাচালান ক‌রে থা‌কে কিন্তু সে হয়‌তো অপহরন ক‌রে‌নি, অন্য কারও দ্বারা অপহর‌ন করার সু‌যোগে ছে‌লে‌টির বাবার কাছ থে‌কে কৌশ‌লে টাকা আদায় কর‌তে চে‌য়ে‌ছিল। তবে পুলিশ এবিষয়ে সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে এবং আরও জোর তৎপরতা আশ^াস প্রদান করেন উক্ত পুলিশ কর্মকর্তা।

কিন্তু আশ্চার্যের বিষয় হলো এলাকের পক্ষ থেকে ২৩/০৫/২০১৭ তারিখ সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ কর্মকর্তার সাথে কথা বলার একদিন পর অর্থাৎ ২৫/০৫/২০১৭ তারিখ বৃহস্প‌তিবার সকালে পাশর্^বর্তী আদিতমারী উপজেলার নামরী নামক স্থানে অপহরকৃত শুভ রায়কে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় অপহরনকারীরা। স্থানীয় লোকজন শুভর কাছ থেকে তার মামার মোবাইল নম্বর জেনে তাকে ফোন করে শুভর অবস্থান সম্পর্কে জানায় এবং শুভর মামা উক্ত জায়গায় পৌঁছে শুভকে খুজে পায়। শুভর মামা তাকে নিয়ে বাড়ি চলে আসেন এবং পরবর্তীতে থানায় সংবাদ দিলে ওসি শুভকে নিয়ে দ্রæত থানায় যেতে বলেন। ওসি শুভর কাছ থেকে বিস্তারিত সব ঘটনা শুনে এবং সন্দেহভাজন আসামীদের ছবি দেখিয়ে অপহরনকারীদের চিহ্নিত করতে সক্ষম হন। ওসি আসামীদের অবস্থান জেনে এবং দ্রæত গ্রেফাতারে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন।

...................................................................................

Add comment

Only the commentator have the whole liability for any comment.


Security code
Refresh

Posts by Year