pic_ms_iacd7_16_en.jpg

৫০ থেকে ১০০ কিন্তু চব্বিশে এগারো, সমাধান হোক দ্রুত

User Rating:  / 1
PoorBest 

২০০৯ সালে ইয়েস সদস্য হিসাবে বাগেরহাট সনাকে অন্তর্ভূক্তির প্রায় এক বছর পর থেকে যথা সম্ভব সক্রিয়ভাবে কাজ করেছি এবং স্বজন  হিসাবেও সক্রিয়।
যখন থেকে সনাক ও বাগেরহাট সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সভায় থাকার সুযোগ হয়েছে, তখন থেকে একটি কথা-ই বার বার শুনতে হয়েছে, তা হলো - নেই। ডাক্তার নেই, এনথেসিয়া নেই, নার্স নেই, বয় নেই, পরিচ্ছন্নকর্মী নেই ইত্যাদি ইত্যাদি। এই নেই মানে অপ্রতুল। ৫০ বেডের হাসপাতালকে ১০০ বেড ঘোষণা করা হয়েছে বেশ কয়েক বছর আগে। ৫০ বেডে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার থাকার কথা ২৪ জন, সেখানে আছে ১১ জন। ৫০%-এর কম ডাক্তার নিয়ে, অপ্রতুল কর্মী রেখেই ৫০ বেডকে ১০০ বেড করা হলো। বেশ কয়েক বছর রোগী ও তাদের স্বজনদের  সেবা সম্পর্কিত মতামত সংগ্রহ করা, পরিমার্জন করে সভায় উপস্থিত করার ভাগ্য হয়েছে। তখনও সমস্যা ছিলো, এখনও সমস্যা আছে।
গত (২৩-০৪-২০১৭) রবিবার রোগী, সনাক ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সমন্বয় সভায় থাকার সুযোগ হয়েছিলো। সভায় বর্তমান ইয়েস সদস্যরা যে জরিপ করেছেন তাতে রোগী বা তাঁর স্বজনেরা ডাক্তার-নার্সদের ব্যবহার, খাবারের মান ও ঔষুধ নিয়ে সন্তুষ্ট। কিন্তু পানি সমস্যা, বৈদ্যুতিক পাখা ও বাতি সমস্যা, টয়লেটে সমস্যা প্রকট বলে রিপোর্টে উঠে আসে। এমন রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে সিভিল সার্জন মহোদয় উত্তর দেওয়ার সময় বলেছেন, সেবার মানে সমস্যা নাই। অবকাঠামোগত বা যে সকল সমস্যা তুলে ধরা হয়েছে সেটি আমাদের ডিপার্টমেন্টের কাজ নয়, গণপূর্ত ডিপার্টমেন্টের কাজ। আমি বার বার তাদের চিঠি দিয়েছি, অনুরোধ করেছি, কিন্তু সাড়া দেন না।
আমি সময় মতো কথা বলতে না পারলে কেমন কেমন লাগে! এই বলার সাথে সাথে কথার মধ্যে কথা বলে বসলাম যে, আপনি বলছেন ইন্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের কাজ ঐগুলো। আমি গ্রামের অশিক্ষিত দরিদ্র মানুষ, আমি তো বুঝি না কোনটা কোন ডিপার্টমেন্টের কাজ, আমি বুঝি সবই ডাক্তারদের হাতে।
তিনি উত্তর দিলেন, এগুলো সবাইকে জানতে হবে। আমরা তো চেষ্টা করছি।
আমি: আপনারা চেষ্টা করছেন, ইন্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট কানে তুলছে না। তার মানে তারা সকল জবাবদিহিতার উর্দ্ধে? আচ্ছা, হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটি কেন ইন্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টকে নিয়ে এই সব ব্যাপারে আলোচনা করেন না?
সিএস: আসলে ঐ কমিটিতে এত সব খুঁটিনাটি আলোচনা করার মতো সুযোগ হয় না।
পাল্টা উত্তরের আগেই সঞ্চালক বাবুল সরদার জানালেন, অন্য একটি সভা আছে। এই ব্যাপারে আমি বলি, ইন্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট চব্বিশ লক্ষ টাকার একটি বাজেট করেছে হাসপাতালের উন্নয়নের লক্ষ্যে। আশা করি, আশু এই সমস্যার সমাধান হবে।
আশার বাণী শুনলেও যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট আমার প্রস্তাবনা:
১) হাসপাতালের বেডের অনুপাতে বরাদ্দকৃত ডাক্তারের অভাব পূরণ করা হোক।
২) প্রয়োজনীয় সংখ্যক নার্স ও স্টাফের ব্যবস্থা করা হোক।
৩) ইন্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের দায়িত্বপ্রাপ্ত কাউকে অবশ্যই হাসপাতালের সেবা সম্পর্কিত মত বিনিময় সভায় উপস্থিত থাকার ব্যবস্থা করা হোক।
৪) ইন্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের বাজেটকৃত চব্বিশ লক্ষ টাকার কাজ দেখার জন্য সিভিল সোসাইটি নিয়ে একটি কমিটি  (ওয়াচ ডগ) গঠন করা হোক।
৫) ডাক্তারের অভাব পূরণ হোক বা না হোক, যেকোন ভাবে একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা রাতে রাউন্ডের ব্যবস্থা করা হোক।

Add comment

Only the commentator have the whole liability for any comment.


Security code
Refresh

Posts by Year