• header_en
  • header_bn

সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), লক্ষ্মীপুর - এর ইয়েস সদস্য শামসুন নাহার শান্তা’র অকাল মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এর অনুপ্রেরণায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), লক্ষ্মীপুর - এর ইয়ুথ এনগেজমেন্ট অ্যান্ড সাপোর্ট (ইয়েস) গ্রুপের সদস্য শামসুন নাহার শান্তা’র অকাল মৃত্যুতে টিআইবি পরিবারের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ করছি। ১১ এপ্রিল ২০২১, সন্ধ্যা ০৭.৩০ টায় নিজ বাসায় অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে নেওয়ার পর তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা শান্তা দীর্ঘদিন ধরে নিউমোনিয়ার কারণে শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে শান্তার বয়স হয়েছিল মাত্র ২৫ বছর।
শান্তা ২৫ জুলাই ২০১৬ থেকে সনাক, লক্ষ্মীপুর - এর ইয়েস গ্রুপের সদস্য হিসাবে সম্পৃক্ত ছিলেন। ২০১৮ সালে তিনি ইয়েস গ্রুপের সহ-দলনেতার দায়িত্ব পালন করেন। ইয়েস গ্রুপের কার্যক্রমে তাঁর অবদান, ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও আন্তরিক সহযোগিতাকে আমরা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি। ইয়েস গ্রুপের সদস্য হিসাবে শান্তা ভ্রাম্যমাণ তথ্য ও পরামর্শ ডেস্ক পরিচালনা, বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের সাথে সভা, মা সমাবেশ, তথ্য অধিকার আইন বিষয়ক প্রচারাভিযান, দিবস উদ্যাপনসহ দুর্নীতিবিরোধী বিভিন্ন প্রচার কার্যক্রমে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। সনাক এর যেকোনো কার্যক্রমে শান্তার স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ অন্যান্য ইয়েস সদস্যসহ আমাদের সকলকে অনুপ্রাণিত করতো এবং তাঁর সক্রিয় ভূমিকা লক্ষ্মীপুরে দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলন গতিশীল করতে অসামান্য অবদান রেখেছে। শান্তার অকাল মৃত্যুতে আমরা দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনের একজন তরুণ ও সম্ভাবনাময় সৈনিক হারালাম।
টিআইবি’র সাধারণ পর্ষদ, ট্রাস্টি বোর্ড, সকল কর্মী, দেশের ৪৫টি এলাকার সনাক, স্বজন, ইয়েস, ইয়েস ফ্রেন্ডস, ঢাকা ইয়েস, ওয়াইপ্যাক-এর সদস্যসহ সকলের পক্ষ থেকে আমরা শান্তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।